প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি কী? কেন এটা প্রয়োজনীয়? জানুন

by Team Onco
145 views

ক্যান্সারের চিকিৎসার বিভিন্ন পদ্ধতি রয়েছে। কিছু নিরাময়মূলক এবং কিছু উপশমকারী বা প্যালিয়েটিভ (Palliative)। নিরাময়কারী ক্যান্সারের চিকিৎসা ক্যান্সার নিরাময়ে সাহায্য করে যখন প্যালিয়েটিভ ক্যান্সারের চিকিৎসা রোগীকে ব্যথা বা ক্যান্সারের অন্যান্য উপসর্গ থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করে। প্যালিয়েটিভ কেয়ার ক্যান্সার নিরাময় করে না তবে এটি ক্যান্সার রোগীর জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে সহায়তা করে।

একইভাবে, যখন ক্যান্সার নিরাময়ের জন্য কেমোথেরাপি দেওয়া হয়, তাকে বলা হয় কিউরেটিভ কেমোথেরাপি (Curative Chemotherapy)। যদি একজন ক্যান্সার রোগীর উপসর্গ থেকে মুক্তিদিতে এবং জীবনযাত্রার মান উন্নত করার জন্য কেমোথেরাপি দেওয়া হয় তাকে বলে প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি (Palliative Chemotherapy)।

সাধারণত, কেমোথেরাপি দুটি অবস্থায় সুপারিশ করা হয়:

১. ক্যান্সারের চিকিৎসা এবং পুনরাবৃত্তি থেকে এটিকে নিয়ন্ত্রণ করা

কেমোথেরাপি দ্রুত বর্ধনশীল কোষ ধ্বংস করে ক্যান্সারের চিকিৎসা করে, যা ক্যান্সার কোষের একটি বৈশিষ্ট্য। এখানে কেমোথেরাপির লক্ষ্য ক্যান্সার সম্পূর্ণ নিরাময় করা এবং ক্যান্সারের পুনরাবৃত্তি প্রতিরোধ করা। এক্ষেত্রে অ্যাডমিনিস্টেরিং কেমোথেরাপিকে কিউরেটিভ কেমোথেরাপি বলা হয়। কেমোথেরাপির মাধ্যমে কিছু ক্যান্সার যেমন লিম্ফোমাস, লিউকেমিয়াস এবং টেস্টিকুলার ক্যান্সারের চিকিৎসা এবং নিরাময় করা সম্ভব।

২. টিউমার সঙ্কুচিত করা এবং তাদের কার্যকরী চিকিৎসা

মেটাস্ট্যাটিক ক্যান্সারের ক্ষেত্রে (যখন ক্যান্সার শরীরের বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে পড়ে), কেমোথেরাপি নিরাময়ে সাহায্য করতে পারে না তবে টিউমারগুলি সঙ্কুচিত করতে ব্যবহৃত হয়। এই ধরনের পরিস্থিতিতে, অ্যাডমিনিস্টেরিং কেমোথেরাপিকে প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি বলা হয়।

“সহজ ভাষায় বললে, প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি রোগীদের ব্যথা বা অন্যান্য ক্যান্সারের উপসর্গ থেকে মুক্তি দেওয়ার জন্য, তাদের জীবনযাত্রার মান উন্নত করতে সাহায্য করতে পারে।”

কখন ক্যান্সার রোগীকে প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি দেওয়া হয়? 

নিরাময়যোগ্য ক্যান্সারের জন্য প্যালিয়োটিভ কেমোথেরাপি বেছে নেওয়া হয় (যখন ক্যান্সার শরীরের অন্যান্য অঙ্গে ছড়িয়ে পড়ে এবং রোগী নিরাময়কারী কেমোথেরাপিতে সাড়া দেয় না)। এক্ষেত্রে টিউমারগুলি সঙ্কুচিত করা বা ক্যান্সারের উপসর্গগুলি থেকে মুক্তি পেতে এটি উপকারী হবে। এটি নিরাময়কারী কেমোথেরাপির পাশাপাশি বা ক্যান্সারের যেকোনও সময় দেওয়া যেতে পারে।

প্যালিয়োটিভ কেমোথেরাপি মৌখিক রূপে বা ইনজেশনের মাধ্যমে দেওয়া যেতে পারে।

আজ পর্যন্ত, প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি অগ্ন্যাশয় ক্যান্সার, ফুসফুসের ক্যান্সার এবং স্তন ক্যান্সারে সফলভাবে এর উপকারিতা দেখিয়েছে।

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

গত দুই দশকে কেমোথেরাপির বহু পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া এবং তীব্রতা লক্ষ্য করা গেছে যা রোগীকে ঘায়েল করতে পারে। তবে যে লক্ষণগুলি দেখা দেয় তা সাধারণত কেমোথেরাপির প্রকৃতি এবং যে ধরনের টিউমারের চিকিৎসা করা হচ্ছে তার উপর নির্ভর করে। যাইহোক সাধারণত যে লক্ষণগুলি দেখা দেয় সেগুলি হল:

  • ক্লান্তি
  • চুল পড়া
  • ওজন কমে যাওয়া
  • খিদে কমে যাওয়া
  • ব্লাড কাউন্ট কমে যাওয়া
  • ডায়রিয়া বা কোষ্ঠকাঠিন্য
  • মুখে ঘা
  • বমি বমি ভাব বা বমি

আপনি আপনার চিকিৎসার বিশেষত্ব সম্পর্কে আপনার অনকোলজিস্টকে জিজ্ঞাসা করতে পারেন এবং কীভাবে সেগুলি নিয়ন্ত্রণ করবেন সে সম্পর্কে বিষদে জানতে পারেন।

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি কতটা সময় স্থায়ী হয়? 

রোগীর শরীরের চিকিৎসার প্রতিক্রিয়ার হার  (Response rate) থেকে বোঝা যায় টিউমারের উন্নতি হওয়ার সম্ভাবনা আছে কিনা। রেসপন্স রেট 20% মানে যদি 100 জন রোগীকে চিকিৎসা করা হয় তাহলে 20 জনের টিউমারের উন্নতির সম্ভাবনা

আছে। আপনার চিকিৎসক আপনাকে সঠিক তথ্য প্রদান করতে পারবেন যা আপনার ক্যান্সারের জন্য অনন্য। টিউমার বাড়ার আগে একজন রোগীর শরীরে কতক্ষণে ইতিবাচক প্রতিক্রিয়া দেখা যাবে তা চিকিৎসা সময়কাল বলতে পারবে। প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি ক্ষেত্রে বেশিরভাগ সময় ৩ থেকে ১২ মাসের মতো সময় লাগে। এর দীর্ঘ প্রতিক্রিয়া দীর্ঘ আয়ু নির্দেশ করে।

ভারতে প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপির খরচ

কেমোথেরাপির খরচ হাসপাতালের উপর, ডাক্তারের দক্ষতা এবং আপনি কী ধরনের চিকিৎসা ব্যবস্থা বেছে নিচ্ছেন তার উপর নির্ভর করে।

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি নেওয়ার আগে সুবিধা এবং অসুবিধাগুলি বিবেচনা করুন

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি নেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে, রোগীর বয়স এবং সাধারণ স্বাস্থ্য, ক্যান্সারের পর্যায় এবং প্রত্যাশিত চিকিৎসার ফলাফল অবশ্যই বিবেচনা করা উচিত। এছাড়াও, আপনার ডাক্তারকে জিজ্ঞাসা করুন যে আপনি এই চিকিৎসা থেকে কী সুবিধা এবং অসুবিধাগুলি পেতে পারেন।  

সুবিধা:

আগেই উল্লিখিত, এটি ক্যান্সারের লক্ষণগুলি থেকে মুক্তি দেয় এবং আপনার সামগ্রিক জীবনযাত্রার মান উন্নত করে। যদি আপনার টিউমার প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপিতে ভালোভাবে সাড়া দেয়, তাহলে আপনি আপনার দীর্ঘায়ু আশা করতে পারেন।

অসুবিধা:

অন্যান্য সমস্ত ক্যান্সারের চিকিৎসার মতো, প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপিও কিছু ক্ষতিকারক পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। কিন্তু আপনার ডাক্তার এর সাথে মোকাবিলা করার জন্য ওষুধ লিখে দিতে পারেন। কিছু ক্ষেত্রে রোগী আশাতীত ফল নাও পেতে পারেন, যদিও সেটা খুবই বিরল।

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপির সুবিধা এবং অসুবিধা একেক জনের ক্ষেত্রে একেক রকম। প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি সমস্ত ক্যান্সার রোগীদের জন্য কাজ করে এমন কোন পর্যাপ্ত প্রমাণ নেই। প্রাথমিকভাবে, অনকোলজিস্টরা নির্বাচিত রোগীদের এই চিকিৎসার সুপারিশ করেন যারা কঠিন টিউমার সহ মেটাস্ট্যাটিক ক্যান্সারে ভুগছেন।

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি কার প্রয়োজন?

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপির সাধারণত স্টেজ 4 ক্যান্সারের রোগীদের জন্য দেওয়া

হয়। যেখানে চিকিৎসার উদ্দেশ্য নিরাময়মূলক নয় এবং রোগীদের জন্য যারা নিরাময়কারী কেমোথেরাপিতে সাড়া দেয় না, যেখানে চিকিৎসার সম্পূর্ণ সাফল্য অর্জন এবং/অথবা পুনরাবৃত্তি রোধ করার লক্ষ্য থাকে। ক্যান্সারের  অন্তিম পর্যায়ে কেমোথেরাপির ব্যবহার নিয়ে বিতর্ক রয়েছে। মূল বিষয় হল অ্যাগ্রেসিভ ধরনের চিকিৎসা পদ্ধতি অনুসরণ করা বা শুধুমাত্র আরামদায়ক হবে এমন ব্যবস্থার দিকে নজর দেওয়া।

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি সম্পর্কে ডাক্তারকে যে প্রশ্ন করা উচিত

আপনার ডাক্তারের সাথে আলোচনা করুন এবং আপনার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে যতটা সম্ভব তথ্য সংগ্রহ করুন। যা আপনাকে সঠিক পছন্দ সিদ্ধান্ত নিতে সাহায্য করবে। আমরা কয়েকটি প্রশ্ন তালিকাভুক্ত করেছি যা আপনার ডাক্তারকে জিজ্ঞাসা করা উচিত।

  • কেন প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপি আমার জন্য সঠিক?
  • এটা কি আমার আয়ু বাড়াতে পারে?
  • এটা কি আমাকে ক্যান্সারের উপসর্গ থেকে মুক্তি দেবে?
  • আমি কী নির্দিষ্ট কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ার সম্মুখীন হতে পারি?
  • এই চিকিৎসার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কি নিয়ন্ত্রণযোগ্য?
  • এটা কি জীবনের মান উন্নত করতে সাহায্য করে?
  • এই চিকিৎসায় আমার ক্যান্সারের সাড়া দেওয়ার সম্ভাবনা কতটা?
  • চিকিৎসা কতক্ষণ স্থায়ী হয়?
  • এই চিকিৎসার সময় আমি কি আমার স্বাভাবিক জীবনযাত্রা চালিয়ে যেতে পারি?
  • যদি আমার ক্যান্সার সাড়া না দেয়? কোনও বিকল্প পছন্দ আছে?

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপির অধ্যয়ন

কোনও কেমোথেরাপির পদ্ধতিকে ‘গোল্ড স্ট্যান্ডার্ড’ হিসেবে দেখানো হয়নি। বিভিন্ন ক্যান্সারে ট্রায়াল নিয়ে পরিচালিত গবেষণায় কেমোথেরাপিউটিক প্যালিয়েশনের পর বিভিন্ন ফলাফল দেখানো হয়েছে। 

প্যালিয়েটিভ কেমোথেরাপির ব্যবহারে সহায়তা করার প্রমাণগুলি বৈজ্ঞানিকভাবে মূল্যায়ন করা হয়েছে। জীবনযাত্রার মান নিয়ে বিতর্ক জোরদার হচ্ছে। যাইহোক, বেঁচে থাকা এবং জীবন প্রত্যাশার বিপরীতে, জীবনের মান বিষয়ভিত্তিক, যা বিশ্লেষণকে সমস্যাযুক্ত করে তোলে।

ক্যান্সারের চিকিৎসা সংক্রান্ত যে কোনও সাহায্যের জন্য  9019923339 নম্বরে কল করুন অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন নিকটবর্তী Onco ক্যান্সার কেয়ার সেন্টারে যান, অথবা ডাউনলোড করুন Onco Cancer Care অ্যাপ। 

 

Related Posts

Leave a Comment