ব্রেন টিউমার: লক্ষণ, প্রকার এবং চিকিৎসা (Brain tumor symptoms, types and treatment)

by Team Onco
1279 views

ব্রেন টিউমার (Brain tumor) বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে। কিছু ব্রেন টিউমার ক্যানসার মুক্ত (বিনাইন) হতে পারে, আবার কিছু ব্রেন টিউমার ক্যান্সার প্রবণ (ম্যালিগন্যান্ট) হতে পারে। ব্রেন টিউমার আপনার মস্তিষ্কে (প্রাথমিক ব্রেন টিউমার) হতে পারে, বা ক্যান্সার আপনার শরীরের অন্য অঙ্গে শুরু হতে পারে এবং আপনার মস্তিষ্কে ছড়িয়ে পড়তে পারে। ব্রেন টিউমারের চিকিৎসার বিকল্পগুলি আপনার ব্রেন টিউমারের ধরন, তার আকার এবং অবস্থানের উপর নির্ভর করে।

বাচ্চাদের ব্রেন টিউমারের লক্ষণ

বাচ্চাদের ব্রেন টিউমারের লক্ষণ যেগুলি সম্পর্কে আপনার সচেতন হওয়া উচিত, সেগুলি হলে :

  • মাথা ব্যথা : ব্রেন টিউমারে আক্রান্ত অনেক শিশু তাদের রোগ নির্ণয়ের আগে মাথা ব্যথা অনুভব করে। যদিও অনেক বাচ্চার মাথাব্যথার সমস্যা থাকে এবং তা বলে সকলেরই ব্রেন টিউমার হয় না। কখনও কখনও সকালের দিকে মাথা ব্যথা বাড়ে। এর অংশ হিসাবে বলা যেতে পারে আপনি যখন শুয়ে থাকেন তখন মানসিক চাপ বৃদ্ধি পায় এবং টিউমার ব্যথা আরও বাড়াতে পারে।
  • বমি বমি ভাব এবং বমি :বমি বমি ভাব এবং বমি ফ্লু বা ফ্লু-এর মতো অসুস্থতার সাধারণ লক্ষণ। যদিও, ব্রেন টিউমারের ক্ষেত্রে এই লক্ষণ দেখা দিতে পারে, যা মস্তিষ্কের ভিতরে চাপ বাড়ায়। যদি এই লক্ষণ ক্রমাগত হতে থাকে, তাহলে আপনার শিশুকে ভাল কোনও বিশেষজ্ঞের কাছে নিয়ে যান।
  • অনিদ্রা বা ঘুম না হওয়া : ভাল ঘুম বাচ্চাকে অনেক বেশি প্রাণবন্ত রাখতে সাহায্য করে। কিন্তু যদি তেমনটা না হয় তাহলে আপনি আপনার শিশুর দিকে খেয়াল রাখুন। যদি আপনার শিশু কোনও কারণ ছাড়াই অলস বোধ করে বা কোনও কারণ ছাড়াই অতিরিক্ত ঘুমায়, তাহলে তার স্বাস্থ্যের বিযয়ে আরও বেশি করে নজর দিতে হবে, আপনি চাইলে এই বিষয়ে ডাক্তারের পরামর্শও নিতে পারেন।
  • দেখতে, শুনতে এবং কথা বলতে সমস্যা : রোগীর শারীরিক অসুবিধা টিউমারের অবস্থানের উপর নির্ভর করে। এটি কখনও কখনও দেখা, শোনা এবং কথা বলার ক্ষেত্রে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। অবশ্য ব্রেন টিউমারের সমস্যা নয় অথচ বাচ্চাদের মধ্যে এই সমস্যা দেখা দিতে পারে। যাইহোক আপনার সন্তানের দৃষ্টিশক্তি, শ্রবণশক্তি এবং কথা বলায় হঠাৎ কোনও পরিবর্তন লক্ষ্য করলেই ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করুন।
  • ব্যক্তিত্ব পরিবর্তন : শিশুর ব্যক্তিত্ব পরিবর্তন তার পালন-পোষণ কীভাবে হচ্ছে তার উপর সম্পূর্ণরূপে নির্ভর করে। তবে কিছু ক্ষেত্রে, সেরিব্রাল কর্টেক্সকে প্রভাবিত করে মস্তিষ্কের টিউমারের কারণে এমনটা হতে পারে। যদি আপনার সন্তানের মেজাজ হঠাৎ পরিবর্তন হয় বা যদি সেটা গুরুতর বলে মনে হয় তবে কোনও শিশুরোগ বিশেষজ্ঞকে দেখান।
  • ভারসাম্যের সমস্যা : যদি টিউমার ব্রেন স্টেমের কাছে থাকে তবে এটি ভারসাম্যের সমস্যা তৈরি হতে পারে। ছোট সন্তানের হঠাৎ করে ভারসাম্য বজায় রাখতে অসুবিধা হয়, তাহলে ডাক্তার আপনাকে কেন এমনটা হচ্ছে তা নির্ধারণ করতে সাহায্য করতে পারেন।
  • খিঁচুনি : যখন ব্রেন টিউমার মস্তিষ্কের পৃষ্ঠে থাকে, তখন এর কারণে খিঁচুনি হতে পারে। যদি আপনার সন্তানের খিঁচুনি হয়, তাহলে ডাক্তারকে অবশ্যই দেখাবেন। কারণ টিউমার বা অন্য কিছু হতে পারে, তবে খিঁচুনি সবসময় পরীক্ষা করা উচিত।
  • মস্তিষ্কের আকার বৃদ্ধি : বাচ্চারা যখন ছোট থাকে তাদের মাথার খুলির হাড়গুলি নরম থাকে, ব্রেন টিউমারের কারণে তাদের মাথার আকার অস্বাভাবিকভাবে বৃদ্ধি পেতে পারে। ঠিক কাজ থেকে এগিয়ে যাওয়ার কারণ হতে পারে। যদি আপনি আপনার শিশুর মাথার আকারে কোনও গুরুতর পরিবর্তন লক্ষ্য করেন অবশ্যই ডাক্তারের সঙ্গে আলোচনা করুন।

ব্রেন টিউমারের ধরন (Types of tumours)

প্রধানত দুই ধরনের ব্রেন টিউমার রয়েছে – প্রাইমারি এবং মেটাস্ট্যাটিক বা সেকেন্ডারি। প্রাথমিক ব্রেন টিউমার মস্তিষ্কের ভিতরের মধ্যে দেখা দেয়। একটি গৌণ মস্তিষ্কের টিউমার যা মেটাস্ট্যাটিক ব্রেন টিউমার নামেও পরিচিত, তখন ঘটে যখন ক্যান্সার কোষগুলি অন্য অঙ্গে, যেমন আফনার ফুসফুস বা স্তনে ছড়িয়ে পড়ে।

প্রাথমিক টিউমারকে গ্লিয়াল এবং নন-গ্লিয়াল টিউমারে শ্রেণীবদ্ধ করা হয়। গ্লিয়াল টিউমর বা গ্লিওমাস হল যেগুলি গ্লিয়াল কোষে উদ্ভূত হয়। এ কোষগুলি নিউরনগুলিকে ঘিরে ধরে রাখে, স্নায়ু কোষগুলিতে পুষ্টি এবং অক্সিজেন সরবরাহ করে, মৃত নিউরনগুলিকে অপসারণ করে এবং একে অপরের থেকে নিউরনগুলিকে অন্তরক করে স্নায়ুতন্ত্রকে সমর্থন করে। গ্লিওমাসের উদারণ হল:

  • অ্যাস্ট্রোসাইটোমাস: এগুলি মস্তিষ্কের ভিতরে বিকাশ লাভ করে।
  • অলিগোডেন্ড্রোগ্লিওমা: মস্তিষ্কের ফ্রন্টাল টেম্পোরাল লোবে টিউমার হয়।
  • গ্লিওব্লাস্টোমা: এগুলি খুব আক্রমণাত্মক টিউমার এবং মস্তিষ্কের সহায়ক টিস্যুতে বিকাশ লাভ করে।

ব্রেন টিউমারের চিকিৎসা (Brain tumour treatment)

  • সার্জারি : ম্যালিগন্যান্ট ব্রেন টিউমারের জন্য এটি সর্বোত্তম চিকিৎসা। সার্জন সুস্থ মস্তিষ্কের টিস্যুর ক্ষতি না করে যতটা সম্ভব ক্যান্সার কোষ অপসারণ করে। রক্তপাত এবং সংক্রমণ অস্ত্রোপচারের 2 সম্ভাব্য পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া। বিনাইন ব্রেন টিউমারও অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে অপসারণ করা যেতে পারে।
  • ন্যূনতম আক্রমণাত্মক অস্ত্রোপচার : নিউরো সার্জনরা এই ব্রেন টিউমার সার্জারির জন্য ক্যান্সার কোষ অপসারণের জন্য ন্যূনতম আক্রমণাত্মক কৌশল ব্যবহার করেন। এই কৌশল ব্যবহারের ফলে আপনাকে হাসপাতালে কম সময় থাকতে হবে এবং দ্রুত আরোগ্য কামনা করতে পারবেন।
  • বিকিরণ থেরাপি : এই ধরনের ব্রেন টিউমার চিকিৎসায়, বিকিরণ, যেমন এক্স-রে বা প্রোটন বিম, টিউমার কোষকে মেরে ফেলার জন্য ব্যবহার করা হয়। এই বাহ্যিক রশ্মি বিকিরণ দ্বারা করা যেতে পারে, যেখানে আপনি একটি মেশিনের সামনে বসেন এবং একটি প্রতিরক্ষামূলক আবরণ পরেন, শুধুমাত্র টিউমার এলাকাটি উন্মুক্ত থাকে। এই থেরাপিটি ব্র্যাকিথেরাপির মাধ্যমেও করা যেতে পারে – একটি ডিভাইস যা আপনার মস্তিষ্কের ভিতরে টিউমারের কাছে স্থাপন করা হয় যা টিউমার কোষগুলিকে মেরে ফেলার জন্য বিকিরণ করা হয়। এই থেরাপির পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়াগুলির মধ্যে রয়েছে ক্লান্তি, স্মৃতিশক্তি হ্রাস, মাথাব্যথা এবং মাথার ত্বকে জ্বালা।
  • কেমোথেরাপি : এতে, ওষুধগুলি শরীরে ইনজেকশন দেওয়া হয় বা মৌখিক রূপে নেওয়া হয় এবং তারা টিউমার কোষকে লক্ষ্যে করে এবং মেরে ফেলে। কেমোথেরেপির কারণে চুল পড়া, বমি, বমি বমি ভাব এবং ক্লান্তির মতো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হয়।
  • লক্ষ্যযুক্ত ড্রাগ থেরাপি : কিছু ধরনের মস্তিষ্কের টিউমারকে ওষুধ দিয়ে চিকিৎসা করা হয় যা টিউমার কোষগুলিতে উপস্থিত নির্দিষ্ট অস্বাভাবিকতাগুলিকে ব্লক করে লক্ষ্য করে। এটি ক্যান্সার কোষকে মেরে ফেলে।
  • রেডিও সার্জারি : অস্ত্রোপচারের অনুরূপ, এই চিকিৎসা টিউমার কোষগুলিকে মেরে ফেলার জন্য মস্তিষ্কের টিউমারে বিকিরণের বিভিন্ন রশ্মিকে ফোকাস করে। রৈখিক অ্যাক্সিলারেটর এবং গামা ছুরির মতো বিভিন্ন কৌশল বিকিরণ সহ মস্তিষ্কের টিউমারের চিকিৎসার জন্য ব্যবহৃত হয়।

আরও পড়ুন : কেমোথেরাপির পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া কী কী?

আরও পড়ুন : ফুসফুসের ক্যান্সারের চিকিৎসা কীভাবে করা হয়?

ক্যান্সারের চিকিৎসা সংক্রান্ত যে কোনও সাহায্যের জন্য  9019923337 নম্বরে কল করুন অথবা আমাদের সাথে যোগাযোগ করতে নিকটবর্তী Onco ক্যান্সার কেয়ার সেন্টারে যান, অথবা ডাউনলোড করুন Onco Cancer Care অ্যাপ।

(Alprazolam Online)

Related Posts

Leave a Comment